Breaking News
Home / জরুরী মাসাইল / ফটোবিশিষ্ট কাপড়ে নামাজ

ফটোবিশিষ্ট কাপড়ে নামাজ

(মুসলিমবিডি২৪ ডটকম)

ফটোবিশিষ্ট কাপড়ে নামাজ

আজকাল ফটোগ্রাফির প্রচলন এবং আকর্ষণ এত বেশী যে, পরিধানের জন্য পর্যন্ত তৈরি হচ্ছে।

কোন প্রাণীর ফটো সম্বলিত কাপড় পরিধান করাই মাকরূহ। আবার ঐ কাপড়ে সর্বোত্তম ইবাদত নামাজ আদায় করা তো আরও দূষণীয় ও অপছন্দনীয়।

প্রাচীন যুগে ফটোবিশিষ্ট কাপড় পরিধান করার প্রচলন ছিল না।

তবে সাজসজ্জার উদ্দেশ্যে তা পর্দা এবং বিছানাস্বরূপ ব্যবহার করা হত।

ফিকুহবিদগণ ঐগুলিকেও মাকরূহ সাব্যস্ত করেছেন।

ফিকুহ শাস্ত্রের বিভিন্ন কিতাবে পরিষ্কার উল্লেখ রয়েছে যে,

নামাজের মাকরূহ সমূহের মধ্যে এটাও যে, মুসল্লীর মাথার উপর কিংবা তার সামনে অথবা তার বরাবর ডানে বা বামে কিংবা সেজদাহর স্থানে ফটো থাকা।

(দুররে মুখতার)

মুসল্লীর নিকটস্থ কোন একদিকে ফটোবিশিষ্ট কাপড় থাকার দরুন যখন মুসল্লীর নামাজ মাকরূহ হয় তবে ফটোবিশিষ্ট কাপড় পরিধান করে নামাজ পড়াতো অবশ্যই মাকরূহ ।
নামাজ মাকরূহ হওয়ার কারণ কয়টি ও কি কি – Muslimbd24.com

এছাড়া  আরও দূষণীয় হবে।

(ফাতাওয়ায়ে দারুল উলূম-৪/১৩৭, আহসানুল ফাতাওয়া-৩/৪২৭)

আজকাল অনেককে খোলা মাথায় নামাজ পড়তে দেখা যায়। অথচ, টুপি হচ্ছে মুসলমানের ইউনিফর্ম। তাই অলসতাবশত: টুপি ছাড়া নামাজ পড়া মাকরূহ।

হ্যা, যদি কেউ আল্লাহর দরবারে অতিরিক্ত নম্রতা প্রকাশের লক্ষ্যে টুপি ছাড়া নামাজ পড়েন, তাহলে তা মাকরূহ হবে না।

তবে বর্তমান সমাজে যেহেতু টুপি ছাড়া নামাজে দাঁড়ানোকে নম্রতা প্রকাশ বলে মনে করা হয় না বরং সেটাকে আল্লাহ তায়ালার,

শাহী দরবারে দাঁড়ানোর আদবের খেলাফ বলেই গণ্য করা হয়ে থাকে। ফলে বিনা উজরে খোলা মাথায় নামাজ আদায় করা মাকরূহ।

আর কেউ যদি নামাজের প্রতি অবজ্ঞ প্রদর্শনস্বরূপ খালি মাথায় নামাজ পড়ে তাহলে তার ঈমান থাকবে না। সে কাফিরে পরিণত হয়ে যাবে।

তাওবাহ করত: নতুনভাবে তাকে পুনরায় ঈমান আনতে হবে। ফিকুহ শাস্ত্রের প্রসিদ্ধ কিতাব দুররুল মুখতারে রয়েছে :

“অলসতা বশত: খোলা মাথায় নামাজ পড়া মাকরূহ । হ্যা, নম্রতা প্রকাশের উদ্দেশ্য হলে কোন অসুবিধা নেই।

তবে নামাজের প্রতি অবজ্ঞ প্রদর্শন হিসেবে খোলা মাথায় নামাজ আদায় করা কুফরী।

হারাম পন্থায় উপার্জিত পয়সার দ্বারা খরিদকৃত কিংবা চুরি করে আনা কাপড় পরিধান করে নামাজ পড়া মাকরূহে তাহরীমী। এ জাতীয় নামাজ পুনরায় আদায় করা ওয়াজিব।

গলায় টাই পরে নামাজ পড়া মাকরূহে তাহরীমী। এ জাতীয় নামাজ পুনরায় আদায় করা ওয়াজিব।

(আহসানুল ফাতাওয়া-৩/৪২৯)

তাকবীরে তাহরীমাহ এর আগে হাত বেধে রাখা

নামাজ শুরু করার প্রথমে নিয়ম হলো উভয় হাত ছেড়ে সোজা হয়ে দাঁড়ানো।

তাকবীরে তাহরীমাহ বলে হাত উঠিয়ে পরে তা নাভীর নিচে (পুরুষের জন্য) বা বুকের উপর (মেয়েলোকের জন্য) বেধে নেয়া।

অথচ, কোন কোন মুসল্লীকে তাকবীর বলা তথা নামাজ শুরু করার আগেই হাত বেধে রাখতে দেখা যায়। যা সুন্নাত তরীকার পরিপন্থী এবং মাকরূহ।

(আহসানুল ফাতাওয়া-২/২৯৭)

 

About Admin

আমার নাম: এইচ.এম.জামাদিউল ইসলাম ঠিকানা: বালাগঞ্জ,সিলেট। আমি কওমি মাদ্রাসায় কোরাআনের খেদমত করতেছি, পাশাপাশি MuslimBD24.Com সাইটের প্রধান লেখক ও সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। অনলাইন সম্পর্কে মোটামুটি জ্ঞান থাকায়, তাই সময় পেলে দ্বীন ইসলাম প্রচারের সার্থে ইসলামিক কিছু পোস্ট লেখালেখি করি। যাতে করে অনলাইনেও ইসলামিক জ্ঞান সম্পর্কে জ্ঞানহীন মানুষ, ইসলামিক জ্ঞান সহজে অর্জন করতে পারে। একজন মানুষ জন্মের পর থেকে মৃত্যু পর্যন্ত নিজের জীবনকে ইসলামের পথে চালাতে গেলে ইসলাম সম্পর্কে যে জ্ঞান অর্জন করার দরকার,ইনশা-আল্লাহ এই ওয়েব সাইটে মোটামুটি সেই জ্ঞান অর্জন করতে পারবে। যদি সব সময় সাইটের সাথে থাকে। আর এই সাইটটি হল একটি ইসলামিক ওয়েব সাইট । এ সাইটে শুধু ইসলামিক পোস্ট লেখালেখি হবে। আল্লাহ তায়ালার কাছে এই কামনা করি যে, আমরা সবাইকে বেশী বেশী করে ইসলামিক জ্ঞান শিখার ও শিখানোর তাওফিক দান করুন, আমিন।

Check Also

কি পরিমাণ খানা খাওয়া ফরজ ও ওয়াজিব

কি পরিমাণ খানা খাওয়া ফরজ ও ওয়াজিব

(মুসলিমবিডি২৪ ডটকম) যে পরিমাণ খানা খেলে জীবন ধারণ করা যায় সে পরিমাণ খাদ্য খাওয়া ফরজ। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered by themekiller.com