Breaking News
Home / মাতা/পিতা / সন্তানকে সুস্থ করতে মা গেলেন কবরে

সন্তানকে সুস্থ করতে মা গেলেন কবরে

(মুসলিম বিডি২৪ডটকম)

মায়ের ভালোবাসার নেই কোন তুলনা

মায়ের ভালোবাসা তুলনাহীন, যিনি ্বার্থবিহীন আপন সন্তানকে সারা জীবন ভালোবেসে যান।

একজন আদর্শ মা আপন সন্তানকে প্রতিষ্টিত করতে নিজের জীবন বিলিয়ে দিতে দ্বিধাবোধ করেন না।

ুপ্রিয় পাঠক/পাঠিকা

আমি আপনাদের নিকট একটি ঘটনা পেশ করব, একজন মা তার সন্তানের জন্য নিজের জীবন কিভাবে বিলিয়ে দেন,

তার জ্বলন্ত দৃষ্টান্ত এই ঘটনায় প্রকাশ পেয়েছে।

এক মায়ের একজন ই সন্তান, আর েই সন্তান এমন একটি রোগে আক্রান্ত যে,

কোন ধরনের চিকিৎসা তিনি বাকি রাখেন নিয়ে সন্তানের ুস্থতার জন্য।

যখন সন্তান ুস্থতা লাভ করছে না, তখন মা সন্তানের সুস্থতার জন্য মান্নত করলেন।

যদি সন্তান ুস্থতা লাভ করে তাহলে তিনি দিন জীবন্ত কবরে দাফন হবেন

এক পর্যায়ে সন্তান ুস্থতা লাভ করল, তখন ওই মা তার মান্নত পূর্ণ করতে কিছুটা বিলম্ব করলেন।

পরবর্তীতে যখন তিনি একাধিকবার ্বপ্নে দেখলেন, এই মান্নতপূর্ণ না করলে তিনি কঠিন বিপদে পড়বেন।

তখন তিনি মান্নত পূরণার্থে কবরে দাফন হতে রাজি হলেন।

ছেলেকেও তিনি রাজি করালেন, ছেলে মায়ের জন্য খবর খুঁড়ে, েখানে মাকে রেখে আসলেন।

েখানে একটি আশ্চর্যজনক ঘটনা ঘটলো

কবরে থাকাকালীন সময় তিনি দেখলেন, দুজন মহিলা তার মাথার দিক থেকে আসছেন।

একজনের মাথার উপর একটি পাখি তার ডানা দিয়ে ছায়া দিচ্ছে এবং বাতাস করে করে নিয়ে আসছে।

অপরজনের মাথার উপর একটি পাখি টুকরাতে টুকরাতে তাকে হাকিয়ে নিয়ে আসছে।

তিনি অবাক হয়ে উভয় মহিলাকে প্রশ্ন করে বসলেন, আপনাদের এই অবস্থা কেন?

যে মহিলার মাথায় পাখি ছায়া দিয়ে বাতাস করে নিয়ে আসছিল তিনি উত্তরে বললেন,

দুনিয়াতে আমি আমার স্বামীকে কোন কষ্ট দেইনি, তার কোন কথার অবাধ্য আমি হইনি।

ফলে তিনি মৃত্যুর সময় আমার উপর সন্তুষ্ট ছিলেন, যার কারণে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আজ আমাকেও শান্তিতে রেখেছেন।

যে মহিমাকে া মাথায় পাখি টুকরাতে টুকরাতে নিয়ে আসছিল, তিনি বললেন দুনিয়াতে থাকাকালীন সময়,

আমার স্বামীকে আমি অনেক কষ্ট দিয়েছি, তার কথার অবাধ্য হয়েছি।

ফলে তিনি মৃত্যুর সময় আমার উপর অসন্তুষ্ট ছিলেন, যার কারণে আজ আমি এই শাস্তি পেতে হচ্ছে।

উপরোক্ত দুইটি ঘটনা থেকে আমরা কি শিখতে পারলাম?

প্রথম ঘঠনা থেকে আমরা জানতে পারলাম, মান্নত করার পর তা পূর্ণ করা ওয়াজিব।

অতএব এমন বিষয়ের মান্নত করতে হবে, যা পূর্ণ করা আমার সাধ্যের ভিতর রয়েছে।

দ্বিতীয়: দুইটি ঘটনা থেকে আমরা জানতে পারলাম, স্বামীর প্রতি দুর্ব্যবহার করা যাবে না।

শরীয়ত সম্মত স্বামীর কোন হুকুমের অবাধ্য হওয়া যাবে না।

মৃত্যুর সময় স্বামী যদি কোন স্ত্রীর উপর অসন্তুষ্ট থাকে, তাহলে এর জন্য শাস্তির আওতাধীন হতে হবে।

আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আমাদেরকে সঠিকভাবে বুঝার তৌফিক দান করুন। আমিন।

আরো পড়ুনঃ
ভদ্র মেয়ে চিনার উপায়,ইন্টারনেট ব্যবহারে সন্তানের প্রতি এক মায়ের উপদেশ

About নঙ্গে আসলাফ আফজাল

আমি মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আফজাল ২০১২ সনে হিফজ সম্পন্ন করি। উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করেন২০১৬ সনে। দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স)সম্পন্ন করি ২০২০ সনে। ইসলাম সম্পর্কে জানতে ও জানাতে পছন্দ করি তাই; Muslimbd24.comকে মাধ্যম হিসাবে ব্যবহার করি। এবং দৈনিক ইসলামী বিভিন্ন লিখা সেখানে প্রকাশ করি। ঠিকানা: বালাগঞ্জ, সিলেট। মোবাইল নাম্বার:০১৩০৩৭২১৪৬০ ইমেইল:hafijafjal601@gmail.com আমার সকল আপডেট পেতে এবং ওয়েবসাইটে লিখা পাঠাতে ফেসবুক পেজ👉MD AFJALツ ফলো করুন।

Check Also

কিয়ামতের অন্যতম আলামত পিতাকে দূরে টেলে বন্ধু কে কাছে আনা

কিয়ামতের আলামত পিতাকে দূরে টেলে দিয়ে বন্ধুদের কাছে আনা

(মুসলিমবিডি২৪ডটকম) কিয়ামতের অন্যতম নিদর্শনের মধ্যে এটাও যে, বন্ধু -বান্ধবদের সাথে সারাদিন বসে গল্প করবে,তাদেরকে কাছে …

Powered by

Hosted By ShareWebHost