Home / ইতিহাস / মাকামে ইবরাহীম কী?

মাকামে ইবরাহীম কী?

(মুসলিমবিডি২৪ডটকম)

মাকামে ইবরাহীম কী

 কাবা গৃহের একটি বড় নির্দশন। এ েই তাকে পবিত্র কুরআনের সূরা আলে ইমরানের ৯৭ নম্বর আয়াতে

স্বতন্ত্রভাবে উল্লেখ করা হয়েছে। একটি পাথরের নাম। এর উপর দাঁড়িয়েই হযরত ইবরাহীম আ. কাবা গৃহ নির্মাণ করতেন।

এক রেওয়ায়াতে বলা হয়েছে যে, নির্মাণের উচ্চতার সাথে সাথে পাথরটিও আপনা আপনি উঁচু হয়ে যেত এবং নিচে অবতরণের সময় নিচু হয়ে যেত।

এ পাথরের গায়ে হযরত ইবরাহীম আ. এর পদচিহ্ন এখন পর্যন্ত বিদ্যমান। একটি অচেতন ও জড় পাথরের পক্ষে প্রয়োজনানুসারে

উঁচু ও নিচু হওয়া এবং মোমের মতো নরম হয়ে নিজের মধ্যে পদচিহ্ন গ্রহণ করা; এসবই আল্লাহর অপার কুদরতের নির্দশন এবং

এতে কাবা গৃহের শ্রেষ্ঠত্বই প্রমাণিত হয়। এ পাথরটি কাবা গৃহের নিচে দরজার নিকটে অবস্থিত ছিল। যখন পবিত্র কুরআনে মাকামে ইবরাহীমে

াজ পড়ার আদেশ অবতীর্ণ হয় তখন তাওয়াফকারীদের সুবিধার্থে পাথরটিকে সেখান থেকে অপসারণ করে কাবা গৃহের সামনে

সামান্য দূরে যমযম কুপের নিকট স্থাপন করা হয়। তাকে এ স্থানেই একটি নিরাপদ কক্ষে তালাবদ্ব করে রাখা হয়েছিল। কাবা প্রদক্ষিণের পর

দুই রাকাত াজ এর পিছনে দাঁড়িয়ে পড়া হয়। অধুনা কক্ষটি সরিয়ে নিয়ে মাকামে ইবরাহীমকে একটি কাচের পাত্রে সংরক্ষিত করে দেওয়া হয়েছে।

আসলে এ বিশেষ পাথরটিকেই বলা হয়। তাওয়াফ পরবর্তী াজ এর উপরে অথবা আশেপাশে পড়া উত্তম।

কিন্ত শাব্দিক অর্থের দিক দিয়ে সমগ্র মসজিদে হারামকেও বুঝায়। একারণেই ফিকাহবিদগণ বলেন:- মসজিদে ের

যে কোনো স্থানে তাওয়াফ পরবর্তী াজ পড়ে নিলে ওয়াজিব আদায় হয়ে যাবে। (তাফসিরে আনওয়ারুল কুরআন)

অন্য এক বর্ণনায় রয়েছে যে, হযরত ইবরাহীম আ. একদা মক্কায় হযরত হাজেরাকে দেখার জন্যে এসেছিলেন, কিন্ত বিবি সারার শপথ অনুযায়ী

সেখানে নামতে অস্বীকার করেন। ফলে হযরত ইসমাইল আ. এর স্ত্রী একটি পাথর নিয়ে আসেন। তিনি তার উপর ডান পা দিয়ে একটু কাত হলে

তাঁর মাথার ডান দিক ধুয়ে দেন। এরপর পাথরকে তাঁর বাম দিকে নিলে তিনি তাঁর বাম পা ‍দিয়ে একটু কাত হলে বাম দিক ধুয়ে দেন।

ফলে তার উপর হযরত ইবরাহীম আ. এর পদচিহ্ন অঙ্কিত হয়ে যায়। আর তা-ই “মাকামে ইবরাহীম” নামে খ্যাত হয়। (কাশশাফ)

 আরও পড়ুন:-

মাকামে ইবরাহীমের ফযীলত
কতবার পবিত্র কাবা ঘর নির্মাণ করা হয়েছিল
হাজরে আসওয়াদের ফযীলতঃ মুহাম্মদ খিজির আহমদ

About Muhammad Abdullah

আমি মাওলানা মোঃ আব্দুল্লাহ। 15ই এপ্রিল 1994 ঈসায়ি রোজ শুক্রবার মৌলভীবাজার জেলার হামরকোনায়( দাউদপুর) জন্মগ্রহণ করি। শিক্ষা জীবনের শুরুটা প্রাথমিক বিদ্যালয় দিয়ে হলেও 4 বছরের মাথায় ইসলামিক শিক্ষা অর্জনের লক্ষ্যে নিজ উদ্যোগে মাদ্রাসায় ভর্তি হই! আলহামদুলিল্লাহ! সর্বশেষ 2017 ঈসায়ি কওমি মাদ্রাসার উচ্চতর ডিগ্রী মাস্টার্স (দাওরায়ে হাদিস) হযরত শাহ সুলতান রহ. মাদ্রাসা থেকে আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল ক্বওমিয়ার মাধ্যমে সম্পন্ন করি! নিজে যা কিছু জেনেছি তা লিখনীর মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে এবং আমৃত্যু ইসলাম ও মানবতার সম্পর্কে জানতে ও জানাতে এই সাইটের সাথে সংযুক্ত হয়েছি! আল্লাহ আমাকে ও সবাইকে কবুল করুন।আমিন!!!

Check Also

হযরত খিজির আ. এর বর্তমান অবস্থা

হযরত খিজির আ. এর বর্তমান অবস্থা

(মুসলিমবিডি২৪ডটকম) আল্লামা আলূসী রহ. বলেছেন যেভাবে তার নবুয়তের ব্যাপারে মতভেদ রয়েছে, তেমনিভাবে তিনি জীবিত আছেন …

Powered by

Hosted By ShareWebHost