Breaking News
Home / আল হাদীস / ইমানের শাখাসমুহ

ইমানের শাখাসমুহ

(মুসলিমবিডি২৪ডটকম)

ইমানের শাখাসমুহ

লিখেছেন: হাফিজ মাওলানা লুকমান হাকিম

ইমানের শাখাসমুহ

ইমানের সকল শাখা তিন প্রকারে বিভক্ত:-

প্রথম প্রকার: যার সম্পর্ক হলো নিয়ত, বিশ্বাস ও অন্তরের আমলের সাথে। তার শাখা ৩০টি।

দ্বিতীয় প্রকার: যার সম্পর্ক হলো যবানের সাথে। তার শাখা ৭টি।

তৃতীয় প্রকার:  যার সম্পর্ক হলো শরীরের অবশিষ্ট অঙ্গের সাথে। তার শাখা ৪০টি।

প্রথম প্রকার:-

এর মধ্যে মোট ৩০টি শাখা রয়েছে:-

১/ আল্লাহ পাকের উপর ইমান আনা।২/ আল্লাহ তায়ালা ছাড়া সব কিছু পরবর্তিতে সৃষ্টি হয়েছে একমাত্র তিনিই অনন্তকাল হতে আছেন।

৩/ ফেরেশতাদের প্রতি ইমান আনা।৪/ আসমানী কিতাবসমুহের প্রতি ইমান আনা।৫/ আল্লাহর প্রেরিত সকল পয়গাম্বরের প্রতি ইমান আনা।

৬/ তাকদীরের উপর ইমান আনা।৭/ কিয়ামত দিবসের প্রতি ইমান আনা।৮/ জান্নাতের উপর ইমান আনা।

৯/ জাহান্নামের উপর ইমান আনা।১০/ আল্লাহর সহিত মহব্বত রাখা।১১/ কাহারো সহিত আল্লাহর জন্য মহব্বত রাখা এবং আল্লাহর জন্যই কাহারো সহিত দুশমনি রাখা।

১২/ রাসুল সা. এর সহিত মহব্বত রাখা।১৩/ সকল নেক আমল ইখলাসের সাথে করা।১৪/ তাওবা অর্থাৎ কৃত গুনাহের উপর লজ্জিত হওয়া।

১৫/ আল্লাহ তা’য়ালাকে ভয় করা।১৬/ আল্লাহর রহমতের আশা করা।১৭/ আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ না হওয়া।

১৮/ আল্লাহর শোকর করা।১৯/ ওয়াদা পূর্ণ করা।২০/ সবর করা।২১/ বিনয়-নম্রতা। এর মধ্যে বড়দের সম্মান করাও শামিল।

২২/ স্নেহ-দয়া। ছোটদের স্নেহ করাও ইহার মধ্যে শামিল।২৩/ তাকদিরের উপর সন্তষ্ট থাকা।২৪/ তাওয়াক্কুল তথা আল্লাহর উপর ভরসা করা।

২৫/ আত্নগর্ব ত্যাগ করা।২৬/ হিংসা বিদ্বেষ না রাখা।২৭/ হায়া তথা লজ্জা করা।২৮/ রাগ না রাখা।২৯/ ধোকা না দেওয়া।

৩০/ দুনিয়ার মহব্বত দিল থেকে বাহির করে দেওয়া।

দ্বিতীয় প্রকার:-

যবানের আমল:

এর মধ্যে মোট ৭টি শাখা রয়েছে:-

১/ কালেমায়ে তাইয়্যেবা পড়া। ২/ কুরআন শরীফ তেলাওয়াত করা। ৩/ দ্বীনি ইলম শিক্ষা করা। ৪/ অন্যদেরকে দ্বীনি ইলম শিক্ষা দেওয়া।

৫/ দোয়া করা। ৬/ আল্লাহর যিকির করা। ইস্তেগফারও এর অন্তর্ভূক্ত। ৭/ অনর্থক কথা না বলা।

তৃতীয় প্রকার:-

অন্যান্য অঙ্গের আমল

এর মধ্যে মোট ৪০টি শাখা রয়েছে।

যা তিন ভাগে বিভক্ত

প্রথম ভাগ 

এই শাখাসমুহ নিজের সাথে সম্পৃক্ত। ইহার ১৬ টি শাখা।

১/ পবিত্রতা হাসিল করা। তথা শরীর, পোশাক, জায়গা পবিত্র রাখা। ২/ নামাজের পাবন্দি করা। ফরজ, ওয়াজিব, নফল,

কাজা সকল প্রকার নামাজ ইহার অন্তর্ভূক্ত। ৩/ সদকা করা। যাকাত, ফিতরা এর অন্তর্ভূক্ত। ৪/ ফরজ, নফল সকল প্রকার রোযা রাখা।

৫/ হজ করা। ফরজ, নফল, ওমরা এর অন্তর্ভূক্ত। ৬/ ইতেকাফ করা। শবে কদর তালাশ করাও ইহার অন্তর্ভূক্ত।

৭/ দ্বীনের হেফাজত করার জন্য বাড়ী ঘর ত্যাগ করা। ৮/মান্নত পুরা করা ৯/ কছম খাইলে উহার হেফাজত করা।

১০/ কাফ্ফারা আদায় করা। ১১/ নামায অবস্হায় অথবা নামাযের বাহিরে সতর ঢাকিয়া রাখা। ১২/ করা।

১৩/ জানাযার নামাযে শরীক হওয়া। ১৪/ কর্জ পরিশোধ করা। ১৫/ লেনদেন মোতাবেক করা। সূদ হতে বেচে থাকা।

১৬/ ের পক্ষে সাক্ষ্য দেওয়া। সত্য গোপন না করা।

দ্বিতীয় ভাগ

অন্যের সহিত আচার ব্যবহার সম্পর্কিত

ইহার ৬টি শাখা।

১/ বিবাহের দ্বারা হারাম হতে বাঁচা। ২/ পরিবার পরিজনের ের প্রতি খেয়াল রাখা। ৩/ মাতা পিতার সহিত সদ্ব্যবহার করা।

৪/ সন্ততির সুশিক্ষার ব্যবস্সা করা। ৫/ আত্নীয় স্বজনদের সহিত সুসম্পর্ক রাখা। ৬/ বড়দের অনুগত হওয়া ও কথা মেনে চলা।

তৃতীয় ভাগ 

সাধারণ সম্পর্কিত 

ইহার ১৮টি শাখা।

১/ ইনসাফের সহিত শাসন করা। ২/ ্কানী জামাতের সহিত থাকা। ৩/ শাসনকর্তার অনুগত হয়ে চলা; যদি বিরোধী কোন না হয়।

৪/ পারস্পরিক বিষয়সমুহ সংশোধন করা। ফাসাদ সৃষ্টিকারীদেরকে শাস্তি দেওয়া। ৫/ নেক কাজে অন্যকে সহযোগিতা করা।

৬/ নেক কাজের আদেশ করা, অন্যায় কাজের নিষেধ করা। ওয়াজ করা, তাবলিগ করাও এর অন্তর্ভূক্ত।

৭/ হদ তথা শরিয়তের নির্ধারিত শাস্তির বিধান কায়েম করা। ৮/ জিহাদ করা। সীমান্ত রক্ষা করাও এর অন্তর্ভূক্ত।

৯/ আমানত আদায় করা। ১০/ কর্জ প্রদান করা ও পরিশোধ করা। ১১/ প্রতিবেশির আদায় করা।১২/ লেনদেন সঠিকভাবে করা।

১৩/ সম্পদ উপযুক্ত স্থানে খরচ করা। ১৪/ সালাম করা ও সালামের উত্তর প্রদান করা। ১৫/ কেহ হাচিঁ দিলে এর জবাবে “ইয়ারহামুকাল্লাহ” বলা।

১৬/ দুনিয়াবাসির সাথে ক্ষতিকারক ও কষ্টদায়ক আচরণ না করা। ১৭/ বেহুদা কাজ ও খেলতামাশা হতে বিরত থাকা।

১৮/ রাস্তা হতে কষ্টদায়ক বস্তু সরিয়ে ফেলা।

(সুত্র: উমদাতুলকারী, ফতহুলবারী, মেরকাত।)

 আরও পড়ুন:-

ঈমান কী
ঈমান অতিশয় মহা মূল্যবান সম্পদ
ঈমান ভঙ্গের কারণসমূহ

About Muhammad Abdullah

আমি মাওলানা মোঃ আব্দুল্লাহ। 15ই এপ্রিল 1994 ঈসায়ি রোজ শুক্রবার মৌলভীবাজার জেলার হামরকোনায়( দাউদপুর) জন্মগ্রহণ করি। শিক্ষা জীবনের শুরুটা প্রাথমিক বিদ্যালয় দিয়ে হলেও 4 বছরের মাথায় ইসলামিক শিক্ষা অর্জনের লক্ষ্যে নিজ উদ্যোগে মাদ্রাসায় ভর্তি হই! আলহামদুলিল্লাহ! সর্বশেষ 2017 ঈসায়ি কওমি মাদ্রাসার উচ্চতর ডিগ্রী মাস্টার্স (দাওরায়ে হাদিস) হযরত শাহ সুলতান রহ. মাদ্রাসা থেকে আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল ক্বওমিয়ার মাধ্যমে সম্পন্ন করি! নিজে যা কিছু জেনেছি তা লিখনীর মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে এবং আমৃত্যু ইসলাম ও মানবতার সম্পর্কে জানতে ও জানাতে এই সাইটের সাথে সংযুক্ত হয়েছি! আল্লাহ আমাকে ও সবাইকে কবুল করুন।আমিন!!!

Check Also

পাচঁ আসার পূর্বে পাঁচের মুল্যায়ন করুন

পাচঁ আসার পূর্বে পাচেঁর মুল্যায়ন করুন

(মুসলিমবিডি২৪ডটকম) “সময় ও স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না।” চোখের পলক পড়তে না পড়তেই সময় …

Powered by

Hosted By ShareWebHost